মহেশখালী পৌরসভার কলেজ সড়ক সংস্কারের দায়িত্ব কার? দেখার কেউ নাই

মহেশখালী প্রতিনিধি:
মহেশখালী উপজেলা সদরের গোরকঘাটা- লাল মোহাম্দ সিকদার সড়ক এর কলেজ এর অংশ পর্যন্ত মৃত্যুফাদে পরিনত হয়েছে। পৌরবাসীর প্রশ্ন এই সড়কের পৌর অংশের সংস্কারের দায়িত্ব কার? পৌরসভা/এলজিইডি এ নিয়ে চরম হতশায় ভোগছেন জনসাধারন। উপজেলা প্রশাসনের প্রধান দপ্তর থেকে শুরু করে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মহেশখালী কলেজ পর্যন্ত যাওয়া আসার একমাত্র সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে বর্তমানে রাস্তার উভয় পার্শ্বে ভেঙ্গে সাধারণ মানুষের চলাচল অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। একানকার ১কিঃ মিটারের মধ্যে পুরাতন কালভার্ট ভেঙ্গে যাওয়ায় যে কোন সময় এ সড়কের দ্রুত যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। যে সড়কটি সংস্কারে দীর্ঘ এক যুগেও কোন ধরনের উল্লেক যোগ্য সংস্কার হয়নি। ফলে কারপেটিং করা সড়কের দুই পাশে খানাখন্দকে পরিণত হয়েছে। এ কারনে খানাখন্দকের স্থানে একটি রিক্সার সাথে অপর রিক্সা ক্রস করতে দূর্ঘটনা পতিত হচ্ছে। অনেক জন শারীরিকভাবে অঙ্গহানী সহ নানা ভাবে আহত হচ্ছে প্রতিদিন এ সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন স্কুল কলেজে পড়–য়া ছাত্রছাত্রী সহ পার্শ্ববর্তী ইউনিয় কুতুবজোমের জনসাধারণ নিয়মিতভাবে চলাফেরা করে। এই সড়কটি এতই গুরুত্বপূর্ণ যে, মহেশখালী থানা, মহেশখালী হাসপাতাল, মহেশখালী কলেজ, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আয়েশা ছিদ্দিকা বালিকা মাদ্রাসা, মহেশখালী কে.জি স্কুল, প্রাণী সম্পদ কার্যালয় সহ সকল গুরুত্বপূর্ণ অফিস আদালতে যাওয়া আসার জন্য এই সড়কটি ব্যবহার হয়ে থাকে। তাছাড়া একটি গাড়ী চলতে গেলে অপর দিক থেকে আসা অপর একটি রিক্সাকে দাড়িয়ে থাকতে হয়। উক্ত রাস্তাটি দিয়ে মালবাহী ট্রাক ও বড় বড় গাড়ী চলাচলের কারণে রাস্তাটি একেবারেই নষ্ট হয়ে গেছে। রাস্তাটি দিন দিন সংকীর্ণ হয়ে যাওয়াতে প্রতিনিয়ত টমটম, সিএনজি, রিক্সা, ট্রাক, বড় বড় গাড়ী দূর্ঘটনার শিকার হয়। এই রাস্তাটি দিয়ে বর্তমানে কোন গাড়ী চলাচল করতে না পারায় দূর দূরান্তে থেকে আসা অনেক যাত্রীকে পথি মধ্যে পায়ে হেটে গন্তব্য স্থানে যেতে হয়। মাঝে মধ্যে রাস্তাটি দিয়ে কোন ডেলিভারী বা গর্ভবতী রোগী নিয়ে  যাওয়া আসা কষ্টের সীমা থাকে না। সড়কের বিভিন্ন অংশে গর্ত সৃষ্টি হওয়ার কারনে যানজট লেগে থাকে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন প্রবীন মুরব্বি বলেন, পৌর নির্বাচনের আঞ্চলিকতার কারনে এ সড়কটি পুটিবিলা এলাকার অংশে হওয়ায় কোনভাবে সংস্কারের কাজ করছে না পৌর কর্তৃপক্ষ। শুধু মাত্র গোরকঘাটা কেন্দ্রীক উন্নয়নের ৮০ ভাগ বাস্তবায়ন হলেও অন্যান্য এলাকায় যথাযথ উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে পৌরবাসী। উক্ত রাস্তাটি সংস্কারের বিষয়ে পূর্বে অনেক অনেক আবেদন নিবেদন করলেও অদৃশ্য কারণে কাজের কোন কাজ হয়নি। তাই কলেজ পড়–য়া ছাত্রছাত্রী ও জনসাধারণের চলাচলের কথা বিবেচনা করে পৌর কর্তৃপক্ষকে দ্রুত এ জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও কালভার্ট নির্মান কাজ বাস্তবায়নের আহবান জানান। এ ব্যপারে মহেশখালী পৌরসভার প্রকৌশলী মোঃ সাইদুল আলম জানান এ সড়কটি এল জিইডি এর নিয়ন্ত্রনে ফলে মহেশখালী পৌবাসীর যাতায়াতের সুবিধার্থে সল্প সময়ের মধ্যে সংস্কার কাজ শুরু করবে মহেশখালী পৌরসভা। এ সড়কটির কাজ বাস্তবায়নে ফাইল প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *