দাকোপে ভিটেহারা হাজার মানুষের মানববন্ধনে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষনে বক্তারা স্ত্রী সন্তান নিয়ে বেঁচে থাকতে ভাঙন রোধে নদী শাসন পূর্বক টেকসই বাঁধ চাই।

দাকোপ (খুলনা) সংবাদদাতা
খুলনার দাকোপে ভাঙ্গনরোধে নদী শাসন পূর্বক টেকসই বেড়ীবাঁধ নির্মানের দাবীতে এক মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশে বক্তারা উপজেলার দু’টি পোল্ডারে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে চলমান মেঘা প্রকল্প জননিরাপত্তায় কাজে আসবেনা উল্লেখ করে উপকুলবাসীকে বাঁচাতে নদী শাসন ব্যবস্থা গ্রহনে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।
গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা সদর চালনা ডাকবাংলার মোড়ে খুলনাস্থ দাকোপ সমিতির আয়োজনে মানববন্ধন ও সমাবেশে সকল শ্রেনী পেশার ভুক্তভোগী হাজার নারী পুরুষ দাকোপ বাঁচানোর দাবীতে অংশ নেয়। সমিতির আহবায়ক কিংশুক রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি এ্যাডঃ সুভদ্রা সরকার, উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান বিনয় কৃষ্ণ রায়, চালনা পৌরসভার মেয়র সনত কুমার বিশ্বাস, উপজেলা আ’লীগনেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান রনজিত কুমার রায়, সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুল্লাহ ফকির, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল কাদের. পঞ্চানন মন্ডল, খুলনা আইনজীবি সমিতির সাধারন সম্পাদক এ্যাডঃ কে এম ইকবল হোসেন, জেলা শ্রমিকলীগের সহসভাপতি ও সমাজ সেবক ফরিদ আহম্মেদ, বিশিষ্ঠ সমাজ সেবক ও মানব বন্ধনের অন্যতম উদ্যোক্তা এম এ মালেক, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক আজগর হোসেন ছাব্বির, খুলনাস্থ দাকোপ সমিতির সাবেক সহসভাপতি এ্যাডঃ এম এম রুহুল আমিন, ডাঃ গৌতম রায়, ড. রজিকুল ইসলাম, প্রকৌশলী ফনীভুষন রায়, ডাঃ আবু জাফর, এ্যাডঃ রজত কান্তি শীল, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জয়ন্তী রানী সরদার, চালনা পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোজাফ্ফার হোসেন, উপজেলা জাপার সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম মামুনুর রশিদ, উপজেলা আ’লীগনেতা এ্যাডঃ জি এম কামরুজ্জামান, গোলাম মোস্তফা খান, ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম আলী ফকির, কে এম কবির হোসেন, জুলফিক্কার গাজী জুলু, কাউন্সিলর আব্দুল গফুর সানা, দেবাশীষ ঢালী, আমোদীনি রায়, মহিলা আ’লীগনেত্রী খাদিজা আকতার, আ’লীগনেতা সঞ্জয় মোড়ল, শেখ সাব্বির আহম্মেদ, গোবিন্দ বিশ্বাস, জি এম রেজা, শিপন ভুইয়া, রতন মন্ডল, বিজলী বৈদ্য, সিপিবির কিশোর রায় প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে দাকোপের ৩২ ও ৩৩ নং পোল্ডারে বেড়ীবাঁধ নির্মান প্রকল্পকে বাস্তব সম্মত না হওয়ার অভিযোগ তুলে বলেন, ৩৫০ কোটি টাকার এই মেঘা প্রকল্পের মাধ্যমে সরকারের অর্থের অপচয় ছাড়া জননিরাপত্তায় তেমন কোন কাজে আসবেনা। নদী শাসন পূর্বক ভাঙন রোধ করতে না পারলে যত বড় রাস্তা করা হোক সেটা ২/১ বছরের ব্যবধানে ফের নদীগর্ভে চলে যাবে। বক্তারা স্ত্রী সস্তান নিয়ে বেঁচে থাকতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নের এই প্রকল্পে প্রয়োজনীয় নদী শাসন ব্যবস্থা অন্তরভুক্ত করে যুগপযোগী টেকসই বাঁধ নির্মানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *