মনোমুগ্ধকর ফুল হেলিকনিয়া

মোহাম্মদ নূর আলম গন্ধী : হেলিকনিয়ার আদি নিবাস আমেরিকা । এর পরিবার-গঁংধবধব,উদ্ভিদ তাত্বিক নাম-ঐবষরপড়হরধ যঁসরষরং। হেলিকনিয়া ফুলকে বেহেশতের বুলবুল বা বার্ড অফ প্যারাডাইসও বলা হয়ে থাকে । আমাদের দেশের প্রকৃতি পরিবেশে গ্রীষ্ম ঋতুতে চার প্রজাতির হেলিকনিয়া ফুল ফুটে এবং এর ফুল ফোটার ব্যাপ্তি শরৎকাল সময় পর্যন্ত থাকে। ফুল গন্ধহীন। গাছ ঝোপালো ভাবে জন্মে , গাছের পাতা ও গাছের আকার-আকৃতি অনেকটা কলা গাছের মতো । গাছের উচ্চতা গড়ে ৫ থেকে ৬ ফুট হয়ে থাকে। পাতা আকারে বড়,পুরু,রং সবুজ, মধ্য শিরা স্পষ্ট। কন্দ জাতীয় এ ফুলের গাছ কন্দ চারার মাধ্যমে বংশ বিস্তার হয়ে থাকে । গাছে ফুটন্ত ফুল দেখতে অত্যন্ত মনোমুগ্ধকর দেখে মনে আনন্দের ঢেউ জাগে ও মনে হয় যেনো ঝুলন্ত সাজানো মালা । এ ফুল ফুটার পর বেশ অনেক দিন গাছের সৌন্দর্য অটুট থাকে। তার পর ঝরে যায় । হেলিকনিয়া ফুলের চারা ইচ্ছে মতো সারি করে লাগনো গেলে ফুল ও গাছের সৌন্দর্য অনেক-অনেক বৃদ্ধি পায় । বসা-বাড়ীর সীমানার দিকেও লাগানো যেতে পারে। তাছাড়া বড় টব ও সরাসরি মাটিতে রোপণ উপযোগী ফুল গাছ । পারিবারিক বাগান , অফিস-আদালত , শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও পার্ক,উদ্দান ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বাগানে এ ফুল গাছ রোপণ চোখে পড়ে । চারা গাছ রোপণের পর বহু বৎসর টিকে থাকে এবং গাছের সংখ্যা দিন দিন বাড়তে থাকে । উঁচু ভূমি,রৌদ্রউজ্জল আবহাওয়া ও প্রায় সব ধরনের মাটিতে এ ফুল গাছ জন্মে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *