ছাত্রলীগের সংঘর্ষের পর পাবনা মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা

নিউজ ডেস্ক : ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের পর পাবনা মেডিকেল কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে ছাত্রছাত্রীদের শুক্রবার দুপুর ২টার মধ্যে হোস্টেল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
আধিপত্য বিস্তার ও সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের এ সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে ক্যাম্পাসে তিন দফায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, বর্তমান সাধারণ সম্পাদকসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। তাদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহতদের কয়েকজন হলেন- পামেক ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু তোরাব মিম, বঙ্গবন্ধু হলের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান, উপ-যুগ্ম সম্পাদক জয়দেব কুমার সূত্রধর, সদস্য নির্ঝর ও সাগর আহম্মেদ।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পামেক ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি মাহফুজ নয়ন মেডিসিন ক্লাব নিয়ন্ত্রণ করেন। আর সাধারণ সম্পাদক অদ্বিতীয় দে নিয়ন্ত্রণ করেন রোটারি ক্লাব। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে আগে থেকেই  দ্বন্দ্ব ছিল। বৃহস্পতিবার নতুন শিক্ষার্থীদের বরণ করাকে কেন্দ্র করে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

পামেক অধ্যক্ষ মো. রিয়াজুল হক রেজা সমকালকে বলেন, তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে ছাত্ররা ক্যাম্পাসের পরিবেশ নষ্ট করবে- এটা মেনে নেওয়া যায় না। তাই কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। দুপুর ২টার মধ্যে ছাত্রদের হোস্টেল ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমরা ঘটনা তদন্ত করে দেখছি। যারাই এর সঙ্গে জড়িত হবেন, তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক জানান, ঘটনার পরপরই উভয় গ্রুপকে শান্ত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ছাত্রলীগ বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

পাবনা সদর থানার ওসি মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, রাতভর মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বেশ কয়েকজনকে আহত অবস্থায় পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ক্যাম্পাসসহ হাসপাতাল চত্বরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *