শ্রীপুরে বড় বোনের বিবাহের গেইট দিয়ে ছোট ভাইয়ের লাশ বেড়

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: বিদ্যুৎ পৃষ্ট হয়ে অনার্স পড়ুয়া ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে বোনের বিবাহ একাধিক গেইট দিয়ে ছোট ভাইয়ের লাশ জানাযা ও দাফন করার জন্য বের হয়। ১৩ জুলাই বাধ জুম্মা পৌর এলাকার উত্তর পাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য বাড়ীর পাশে বিদায়হীনতার ঘটনা ঘটে। এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।
জানা গেছে, সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট রহমত আলীর ভাতিজা অসুস্থ মো: মোফাজ্জল হোসেনের মেয়ে শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষিকা শাহনাজ পারভীন রতœা বেগত পাশ্ববর্তী ভাংনাহাটি চাপিলাপাড়া গ্রামের ফারুক হোসেনের সঙ্গে ১৩ জুলাই শুক্রবার বিবাহ অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। বিবাহ অনুষ্ঠানের প্রভাষিকার ভাই একই বিশ্ব বিদ্যালয়ের অনার্সের ছাত্র মো: শামছুল আলম (২২) বিবাহের অনুষ্ঠানের ১২ জুলাই রাতে বাড়ীতে গরু মাংস সহ বিভিন্ন আয়োজনের প্রস্তুতি শেষে গরম লাগাতে বোনের বিবাহ হলুদ চৌকিতে দাড়ানো বৈদ্যুৎতিক পাখার বাতাস খাওয়ার জন্য হাত দিয়ে পাখা গুরানোর সময় বিদ্যুৎ পৃষ্ট হয় তার চিৎকারে বাড়ীর লোকজন আগাইয়া আসিয়া উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। মৃত্যুর ঘটনার পর প্রভাষিকা বিবাহের সকল আয়োজন বন্ধ করে দেন।
আজই বাদ জুম্মা নিহতের নিজ বাড়ীর পাশে মাঠে জানাযার নামাজ পড়ে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। নিহতের চাচা মোস্তফা কামাল জানান, লেখা পড়ার পাশাপাশি সংসারের হাল ধরে রাখার জন্য নিহতের চাচা এডভোকেট শাহিন এর সাথে কন্ট্রাকদারির কাজ করিত।
অনার্স পড়ুয়া ছাত্রের অকাল মৃত্যুতে গভির শোক প্রকাশ করেন গাজীপুর ৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট রহমত আলী, কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ স্বাস্থ্য বিষয়াক সম্পাদক মনোনয়ন প্রত্যাশী ডা: রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধক্ষ্য ও শ্রীপুর প্রেস কাবের সভাপতি নূরুন্নবী আকন্দ, পৌর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আলাহজ্ব এডভোকেট শেখ মো: নজরুল ইসলাম, পৌর বিএনপির সংগ্রামী সভাপতি এডভোকেট কাজী খান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো: জাকিরুল হাসান জিকু, সাংবাদিক মো: আকতার হোসেন শেখ ও শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক কামরুল হাসান বুলবুল প্রমুখ।

শ্রীপুরে মোবাইল কেড়ে নেওয়ায় ছাত্রীর আত্মহত্যা!

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:
শ্রীপুরে মুঠোফোন কেড়ে নেয়ায় অভিমানে এক স্কুল শিক্ষার্থী কিশোরী আত্মহত্যা করেছে। ১২ জুলাই বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে নিজ ঘরের ধর্নার সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের আবদার গ্রামের মমতাজ উদ্দিনের মেয়ে তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত নুপুর (১৫) নামের আত্মহত্যা করে।
নিহত কিশোরীর পিতা মমতাজ উদ্দিন জানান, নুপুর ছোট বয়স থেকেই মেধাবী শিক্ষার্থী। সামনে তাঁর এসএসসি পরীক্ষা। পড়ালেখার সময় সে মুঠোফোন নিয়ে ব্যস্ত থাকতো। তাঁর পড়ালেখায় ক্ষতি হবে জেনে তার মা নুপুরের কাছ থেকে মুঠোফোন কেড়ে নিয়ে যায়।
রাতে নুপুরের বাবা এক আত্মীয়ের বাড়ীতে বেড়াতে যান। রাত ১২টার দিকে তাঁর মা নুপুরের ঘরে গিয়ে নুপুরের ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পেয়ে তাকে খবর দেন। শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাকীব নাজমুল জানান, শুক্রবার সকালে সংবাদ পেয়ে স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ স্বজনদের কাছে দাফনের জন্য হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *