মামলা প্রত্যাহারের চাপ ও হুমকি নির্যাতিতা গৃহবধূর উপর ৮ মাসেও গ্রেফতার হয়নি যৌতুক লোভি স্বামী

গৌরীপুর ময়মনসিংহ থেকে শেখ বিপ্লব :
নির্যাতিতা গৃহ বধূর দায়ের করা যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলা গ্রেফতারী পরোয়ানা ভ’কত্ত আসামী ৮ মাসেও গ্যেফতার হয়নি। অপর দিকে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের জন্য বাদীকে চাপ ও প্রান নাশের হুমকি দিয়ে আসছে যৌতুক লোভি স্বামী ও তার পরিবার। বাদী শারমিন আক্তারের আদালতে দায়ের করা মামলার ২০১৮ইং সালে ২৫ জানুয়ারী স্বামী এমএম মাহামুদুল হাসান রনির বিরোদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করে।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ইং সালে পারিবারিক ভাবে গৌরীপুর উপজেলার পৌর শহরের আব্দুল আজিজের মেয়ে শারমিন আক্তারের সাথে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার আঃ খালেকের ছেলে এসএম মাহামুদুল হাসান রনির সাথে বিয়ে হয়। ২০১৫ সালে আনুষ্ঠানিক ভাবে শারমিনকে পিত্রালয় থেকে শ্বশুরালয়ে তুলে নেয়। এর পর থেকে স্বামী ও তার পরিবার গৃহবধূ শারমিনের উপর ১০ লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবী করে। যৌতুকের টাকা না পেয়ে শুরু করে গৃহবধূ শারমিনের উপর শারীরিক নির্যাতন। গায়ে দেয়া হয় ছেকা, শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে করা হয় ফুলা যখম। সংসারে সুখের জন্য গৃহবধূ সমস্ত নির্যাতন মুখ বুঝে সহ্য করে। কিন্তুু যৌতুক লোভি স্বামী ও তার পরিবার ১০ লক্ষ টাকা ছাড়া শারমিনকে মানতে নারাজ। কিছু দিন পর স্বামী ও তার পরিবার গৃহবধূ শারমিনকে শ্বশুরালয় আশুগঞ্জ ওয়াপদা কলোনী তরুলতা-১ কোয়াটার থেকে পাঠিয়ে দেয় পিত্রালয়ে। আর ১০ লক্ষ টাকার জন্য প্রতিনিয়ত শারমিন ও পরিবারকে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। শারমিন আরো জানায়, বিয়ের সময় মটরবাইকের জন্য ২ লক্ষ টাকা নগত, সাড়ে তিন ভরি স্বর্নালংকার ও ফার্নিসার বাবদ ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা দেয়ার পর আরো ১০ লক্ষ টাকা দাবীতে আমাকে মধ্যযুগীয় কায়দায দীর্ঘ দিন নির্যাতক করে পিত্রালযে পাঠিয়ে দেয়। কোন উপায়ান্ত না পেয়ে আইনি আশ্রয় নেয়ি নারী ও শিশু আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ২০০০ (সংশোধনি) ২০০৩ এর ১১ (গ) /৩০ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে । মামলা নং ৮০/১৮ইং। বিজ্ঞ আদালত শারমিনের দায়ের করা মামলাটি আমলে নিয়ে ২৫ জানুয়ারী ১৮ইং আসামী এসএম মাহামুদুল হাসান রনির বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করে। সেই থেকে রনি তার বাবার কর্মস্থল ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলার আশুগঞ্জ থানার ওয়াপদা কলোনীর তরুলতা-১ কোয়াটারে বসবাস করছে। সে খান থেকে মামলা প্রত্যাহারের জন্য প্রতিনিয়ত হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে। যৌতুক লোভি স্বামী রনিকে গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছেন।

31 total views, 7 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.