মহেশপুরে সরকারী গাছ কর্তন মেম্বার সহ ১১ জনের নামে মামলা দায়ের

মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কাজীরবেড় ইউনিয়নে প্রায় ৭ লাখ টাকার সরকারী গাছ কর্তনের অভিযোগে স্থানীয় মেম্বার সহ ১১ জনের নামে মামলা দায়ের।
থানা ও স্থানীয় ভূমি অফিস সূত্রে প্রকাশ, উপজেলার কাজীরবেড় ঈদ গাঁ থেকে মাথলার সুইজ গেট পর্যন্ত ১নং খতিয়ানের ২৫২১ দাগে ৩ একর ৪ শকত জমির উপর বিভিন্ন ধরনের বনজ গাছ ছিল। যেমন-মেহগুনি, শিশু, ইপিল ইপিল, মহানিম ইত্যাদি। যা পরিবেশ ভারসম্য রক্ষায় সহায়তা করে। স্থানীয় সরকার দলীয় মেম্বার মফিজুর রহমানের নেতৃত্বে একদল গ্যাং গ্রুপ গত ৫/৬ দিন ধরে প্রায় ৭ লক্ষ টাকার গাছ কেটে কাজীরবেড় গ্রামের জুয়েল ভাটায় একই গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে আমিনুরের মাধ্যমে বিক্রি করে দেয়। গ্রামবাসীর মাধ্যমে স্থানীয় ভূমি অফিস জানতে পেরে রোববার কাজীরবেড় ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সহকারী ভূমি অফিসার মোঃ আকরামুজ্জামান বাদী হয়ে স্থানীয় মেম্বার মফিজুর রহমান, পিতা-পাচু মালিতা, এনামুল পিতা- দাউদ, ফরজ আলী, পিতা-কদম আলী, শরিফুদ্দিন, পিতা-রয়েল, আমিনুর পিতা-সিরাজুল সহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে মহেশপুর থানায় একটি মামলা হয়। যার নং ৮ তারিখ ১০/২/১৯ইং। সকল আসামীদের বাড়ী কাজীরবেড় গ্রামে। স্থানীয় লোকজন এ বিষয়ে জানায়, ৬/৭ দিন ধরে গাছগুলি কাটলেও স্থানীয় ভূমি অফিস জানতে পারে শেষদিকে। যা সকলের কাছে রহস্যজনক বলে মনে হয়েছে।
স্থানীয় ভূমি কর্মকর্তা আকরামুজ্জামান জানায়, তিনি খবর পেয়ে সরেজমিনে খোজ-খবর নিয়ে উর্ধ্বতন কৃর্তৃপক্ষের নির্দেশে রবিবার বিকালে মহেশপুর থানায় মামলা দায়ের করেছে। এ বিষয়ে কোটচাঁদপুর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর্জা সালা উদ্দিন জানান, বিষয়টি তার নলেজে আছে মহেশপুর থানায় মামলা হয়েছে। সরকারী সম্পদ রক্ষার স্বার্থে সব ধরনের আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই আলিমুজ্জামান জানান, আসামীদের ধরার চেষ্টা চলছে। এদিকে আসামীদের বাঁচানোর জন্য স্থানীয় প্রভাবশালী মহল জোর তৎপরতা চালাচ্ছে।

730 total views, 3 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.