পরকিয়ায় আসক্তি! স্বামীকে ফাসাতে আত্মহত্যা চেষ্টা

মোঃ নজরুল ইসলাম, অষ্টগ্রাম (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: মেহেদীর দাগ এখনো শুকায়নি। মাত্র তিন মাস আগে ্পারিবারিক ভাবেই বিয়ে হয়েছে বাহাদুরপুর বড়হাটির মৃত সাচ্চু ভ’ইয়ার মেয়ে স্বর্ণার (১৮)। কিন্তু বিগত তিন মাসেও সে ভ’লতে পারেনি তার পুরাতন প্রেমিককে। নিয়মিত মোবাইলে যোগাযোগ রাখে তার সাথে। এতে বাধা হয়ে দাড়ায় তার স্বামী শফিকুল ইসলাম (২৫)। এতে স্বর্ণা ক্ষিপ্ত হয়ে নিজের শরীরে নিজেই কাঁচ দিয়ে আঘাত করে সারা শরীরে জখম করে আত্মহত্যা চেষ্টা করে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে অষ্টগ্রাম উপজেলার কাস্তুল গ্রামে। বর্তমানে সে অষ্টগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
হাসপাতালে মেয়েটিকে দেখতে গেলে আহত স্বর্ণা অসংলগ্ন কথা বার্তায় স্বামীকে অভিযুক্ত করে। এবং প্রতিবেদককে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। এ বিষয়ে হাসপাতালের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক কাউসার আহমেদের সাথে কথা বললে তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন- এ বিষয়ে কথা বলতে হলে আদালতে গিয়েই বলব। আমি আপনাকে কোন তথ্য দিতে পারবনা। এ বিষয়ে কথা হয় স্বর্ণার স্বামী অভিযুক্ত শফিকুল ইসলামের সাথে। তিনি বলেন স্বর্ণা আমার দ্বিতীয় স্ত্রী, বিয়ের পর থেকেই অন্য একটি ছেলের সাথে সে পরকিয়ায় লিপ্ত। তাকে পরকিয়ায় বাধা দিলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে সে আমার প্রথম স্ত্রীর চার বছরের শিশু সন্তান মরিয়মকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার চেষ্টা করে। এ বিষয়ে আমি পূর্বেই তার বড় ভাই ও মাকে অবহিত করেছি। শফিক তার উপর আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন-তাকে (স্ত্রী) পরকিয়ায় বাঁধা দেওয়ায় সে নিজেই আজ রাতের কোন এক সময় নিজের শরীরে ভাঙ্গা কাঁচ দিয়ে আঘাত করে সারা শরীরে জখম করে এবং আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। একই কথা জানালেন স্বর্ণার শ্বাশুরী ও প্রতিবেশীগণ।
এ বিষয়ে অষ্টগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম মোল্লাহ এ প্রতিদেককে জানান-আমি আহত মেয়েটিকে দেখেছি। তবে এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

1,332 total views, 3 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.