নিকলীতে সেচ্ছা শ্রমে রাস্তা নির্মাণ

শেখ উবাইদুল হক স¤্রাট, নিকলী, (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি : নিকলীতে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পেতে স্থানীয় যুবসমাজের উদ্যোগে সেচ্ছা শ্রমে একটি রাস্তা নির্মাণ হয়েছে।
উপজেলা সদরের ৪নং ওয়ার্ডের পুকুর পাড় গ্রামের রাস্তাটি মূল সড়কের সাথে সংযুক্ত এবং উপজেলা সহকারী ভূমি কমিশনার (এসি ল্যান্ড) এর কার্যালয়ের দেওয়াল সংলগ্ন একটি রাস্তা। এ রাস্তা দিয়ে পশ্চিম নিকলীর এগারোটি গ্রামের ১০ হাজারের অধিক লোকজন যাতায়াত করে থাকেন। এ রাস্তাটি স্কুল-কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা, অফিস, হাসপাতাল, মসজিদ-মাদরাসা, হাট-বাজারে যাতায়াতের গুরুর্ত্বপূর্ণ একমাত্র পথ । ২০০৪ সালে বন্যায় রাস্তাটি পাশের পুকুরে বিলিন হয়ে যাওয়ায় বিকল্প পথে এলাকাবাসী যাতায়াত করে আসছিলো। রাস্তাটি পূণরুদ্ধারে দীর্ঘদিন পুকুরের মালিক পক্ষ ও স্থানীয়দের আদালতে মামলা চলে। আদালতে মামলাটি সূরাহা না হলেও ১৯৯৭-৯৮ অর্থ বছরে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মোঃ জিল্লুর রহমানে বিশেষ অনুদানে রাস্তার প্রতিরক্ষা দেয়াল (প্যালাসাডিং) মাটির নিচে ফেলে ২০১৮ সালের মধ্যভাগে কামার তালাব নামে শতবর্ষী পুকুরটি অনৈতিক ভাবে বালু ভরাটের মাধ্যমে শ্রেণী পরিবর্তন করে পুকুরের মালিকগণ।
পুকুরটি ভরাটের পূর্বে অত্র এলাকার বৃষ্টির পানি এ পুকুরেই নিঃসরিত হতো। পয়নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না রেখেই পুকুর ভরাটের ফলে উপজেলা ভূমি অফিস, ইউনিয়ন ভূমি অফিস, কৃষি ব্যাংক, উপাজেলা ডাকঘর এর সামনের সরকারি রাস্তাটি সামান্য বৃষ্টি হলেই পানিতে হাঁটুজল জমে। একই অবস্থা হয় পুকুরের দক্ষিণ পাশের মূল সড়কের সাথে সংযুক্ত ও এলাকাবাসীর উদ্ধারকৃত পুকুর পাড় গ্রামের নতুন রাস্তাটি।
জলাবদ্ধতার কারণে এগারোটি গ্রামের স্কুল কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থী, ব্যাংক, ভূমি অফিস, ডাকঘরে আসা সেবা গ্রহীতা ও এলাকার একটি মাত্র মসজিদের মুসল্লীরা যাতায়াত করতে বিড়ম্বনার শিক্ষার হচ্ছেন।
এরই প্রেক্ষিতে পুকুরের মালিকগণ, স্থানীয় ব্যাক্তিবর্গ, ইউপি চেয়ারম্যান এর মধ্যে রাস্তার পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার বিষয়ে একাধিক বার আলোচনা করেও কোন সমঝোতা হয়নি। অবশেষে জলাবদ্ধতা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার লক্ষ্যে, পুকুর পাড় গ্রামের যুবসামাজের উদ্যোগে বিত্তবানদের আর্থিক সহায়তায় পুকুরের দক্ষিণ পাশের উদ্ধার হওয়া নতুন রাস্তাটি সেচ্ছা শ্রমে মাটিভরাট করে চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে। তবে পুকুরের পশ্চিম অংশে পাকা রাস্তাটি এখনও জলাবদ্ধতায় নিমজ্জিত।
উপজেলা নির্বাহী কমর্কতা মোছাম্মৎ শাহীনা আক্তার জানান, জলাবদ্ধতার বিষয়টি আমার জানা থাকলেও, সেচ্ছা শ্রমে রাস্তা নির্মাণের বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে আমি খোঁজ খবর নিয়ে দেখবো।

3,000 total views, 11 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.