তজুমদ্দিনে প্রধান শিক্ষক সমিতির বিরুদ্ধে অব্যাহত ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সংবাদ সন্মেলন

তজুমদ্দিন(ভোলা) প্রতিনিধি।। 
ভোলার তজুমদ্দিনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সমিতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করেছেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন। রবিবার তজুমদ্দিন রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সমিতির সংবাদ সন্মেলনে এমনই অভিমত প্রকাশ করেন সমিতিটির নেতৃবৃন্দ। সংবাদ সন্মেলনে প্রধান শিক্ষক ফরহাদ হোসেন জানান, প্রধান শিক্ষক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা, ভোলা ৩ আসনের সংসদ সদস্য জননেতা নুরূন্নবী চৌধুরী শাওন মহোদয়ের উপস্থিতিতে গঠিত প্রধান শিক্ষক সমিতির বিরোধিতাকারী চক্র মেজর হাফিজের ভাগনে জোসেফ, মাহাবুব গংরাই ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছেন। সম্প্রতি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আতিকুল ইসলামের বদলীর পর এ ষড়যন্ত্র তীব্র আকার ধারণ করে। মাননীয় এমপি মহোদয় এবং শিক্ষকদের কাছে প্রধান শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ্যে প্রনোদিতভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে এই ঘৃন্য ষড়যন্ত্র অব্যাহত রাখে সেই চক্র। 
এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার বাদলীপুর সঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কানন দে তজুমদ্দিন প্রেসক্লাবে যে সংবাদ সন্মেলন করেছেন তাতে প্রধান শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শশীগঞ্জ সঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফরহাদ হোসেন ও চাঁদপুর মডেল সঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিতালী দত্তের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেন তাকে ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যায়িত করেন ভোলা জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক (২০১২)ফরহাদ হোসেন। 
যদিও অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কানন দে এক প্রশ্নের উত্তরে এ প্রতিবেদককে জানান, তিনি স্বেচ্ছায় প্রধান শিক্ষক ফরহাদ হোসেন ও মিতালী দত্তের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করেননি। অন্যদের কাছে শুনে বিভ্রান্ত হয়ে মানসিক চাপে অসুস্থ অবস্থায় তিনি উক্ত সংবাদ সন্মেলন করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে বর্তমানে তার কোনো অভিযোগ নেই। তিনি এও জানান বিভিন্ন সময়ে নানাবিধ উপকার করায় এ দুই প্রধান শিক্ষকের কাছে তিনি ঋণী। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি শাহাবুদ্দিন মাস্টার বলেন, শিক্ষকরা দেশ গড়ার কারিগর শিক্ষকদের হেয় প্রতিপন্ন করে কোনো জাতি উন্নতি করতে পারেনা। এ ধরণের কাদা ছোড়াছুড়ি কাম্য নয়। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.