জুলাইয়ে মাঠে নামবে ২০ দলীয় জোট

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জুলাই মাসে আন্দোলনের মাঠে নামবে ২০ দলীয় জোট। ঢাকাসহ বিভিন্ন মহানগরে কর্মসূচি পালন করবে তারা। এ ছাড়া বিভাগীয় পর্যায়েও দেওয়া হবে কর্মসূচি। আপাতত ২০ দলীয় জোট সম্প্রসারণ করা হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং ২০ দল আলাদা প্ল্যাটফরমে থাকবে। আন্দোলন কর্মসূচি দেওয়া হলে আলাদাভাবে রাজপথে থাকবে দুই জোট।

গতকাল সোমবার রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে জোটের সব শরিক দল থাকলেও জামায়াতের কেউ ছিলেন না। জোটের এক নেতা জানান, বিএনপি চায় বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে সভা সমাবেশ, মানববন্ধন, অনশন ধরনের শিথিল আন্দোলন। কঠোর আন্দোলনের পক্ষে নন তাঁরা। ডিএলের সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি জানান, বৈঠকে কৌশলগতভাবে ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে ২০ দলের সমন্বয়ের কথা বলা হলে ২০ দলের নেতারা তা নাকচ করে দেন।

জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান বলেন, ২০ দলীয় জোট সম্প্রসারণের কোনো ভাবনা আপাতত নেই। তবে এ বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। একইসঙ্গে ঐক্যফ্রন্ট নিয়েও দল বা জোটে কোনো সমস্যা নেই। নজরুল ইসলাম খান বলেন, দেশে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার আন্দোলনের প্রধান নেত্রী বেগম জিয়ার দ্রুত মুক্তির লক্ষ্যে আগামী জুলাই মাসে ঢাকাসহ বিভিন্ন মহানগরে কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ২০ দলীয় জোট। এ ব্যাপারে আগামী জোটের সভায় নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘আমাদের ২০ দলীয় জোটে কোনো অসন্তোষ নেই। আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জুলাই মাসেই আন্দোলনে নামবে জোট।’

বৈঠকে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি, প্রস্তাবিত বাজেট, কৃষকদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য নির্ধারণসহ নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এদিকে, জোট সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন বেগবান করতে আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে বিএনপি বিভাগীয় পর্যায়ে কর্মসূচি পালন করতে যাচ্ছে। সেই কর্মসূচির সঙ্গে ২০ দলকে যুক্ত করতেই এ বৈঠক করা হয়।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে নজরুল ইসলাম খান, ইসলামী ঐক্যজোটের অ্যাডভোকেট এম এ রকীব, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) জাফরুল্লাহ খান চৌধুরী লাহরি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের মাওলানা নূর হোসেইন কাশেমী, অপর অংশের মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম, এনডিপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.