না ফেরার দেশে চলে গেলেন ছেলের জন্য সারাবছর রোজা রাখা সেই মা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-
ছেলেকে ফিরে পেয়ে দীর্ঘ ৪৪ বছর ধরে সারা বছর রোজা রাখা মা ভেজিরণ নেছা ছেলেকে ফেলে না ফেরার দেশে চলে গেলেন। সোমবার বিকেলে বার্ধক্যজনিক কারণে নিজ বাড়ি সদর উপজেলার বাজার গোপালপুরে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। তিনি ৩ ছেলে ও ৩ মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। সোমবার রাতে গ্রামের গোরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়।
উল্লেখ্য, তার বড় ছেলে ১২ বছর বয়সে হারিয়ে যান। অনেক খোঁজাখুজির পর দেড় মাস পর তিনি গ্রামের মসজিদ ছুঁয়ে প্রতিজ্ঞা করেন তার ছেলে ফিরে এলে যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন রোজা রাখবেন। ওইদিনই তার ছেলেকে খুঁজে পান। এরপর থেকে তিনি রোজা রাখা শুরু করেন। শুধুমাত্র ইসলাম ধর্মের বিধান মতে বছরে কয়েকটি রোজা ছাড়া দীর্ঘ প্রায় ৪৪ বছর রোজা রেখেছেন।
হাটগোপালপুর গ্রামের বেসরকারি চাকুরীজি মঞ্জুর ঢালী বলেন, আমার বুদ্ধি জ্ঞান হবার পর থেকেই দেখছি ভেজিরণ নেছা রোজা রাখছেন। শত অভাব অনটনের মধ্যে, পরের বাড়িতে কাজকর্ম করে ছেলে মেয়েদের বড় করেছে। দীর্ঘ প্রায় ৪৪ বছর মুসলামান ধর্মের বিধান মেনে, বড় ছেলে শহিদুল হারিয়ে যাবার পর ফিরে পেয়ে রোজা রেখেছেন। তিনি আরো বলেন, মা তো মা-ই। মায়ের তো কারো সাথে তুলনা হয়না। তবে ভেজা ছেলের জন্য যে এত বড় সিন্ধান্ত নিয়েছে, তা একমাত্র মা বলেই সম্ভব হচ্ছে। তার মত আর মা আছে বলে আমার জানা নেই।
সখিরন নেছার ছেলে শহদিুল ইসলাম বলেন, আমার মা আমার জন্য এত কষ্ট করেছেন। তিনি আজ আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। আল্লাহ তাকে বেসস্ত নসিব করুন। মায়ের জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন তিনি।

ঝিনাইদহে পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-
ঝিনাইদহে বাংলাদেশ পুলিশে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল(পুরুষ ও নারী) পদে নিয়োগ বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছ। মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জেলা পুলিশের আয়োজনে এ ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ঝিনাইদহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি পদে পদন্নোতি প্রাপ্ত) মিলু মিয়া বিশ্বাসের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ প্রেসক্লাব সভাপতি এম রায়হান, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান টিপু, গোয়েন্দা পুলিশের ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন সহ ঝিনাইদহে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, গত ২৬ জুন ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান এর নেতৃত্বে পুলিশ লাইন্স এ নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হয়ে ২ জুলাই শেষ হয়। এবারের নিয়োগ কার্যক্রমে প্রায় ৩ হাজার প্রার্থী অংশ গ্রহণ করে। এর মধ্যে থেকে লিখিত পরিক্ষায় ৩৪১ জন অংশ গ্রহণ করে। চুড়ান্ত ফলাফলে মেধা তালিকা অনুসারে ৫৯ জনকে নির্বাচিত করা হয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ৩০ জন( কোটাসহ) ও মহিলা ২৯ জন (কোটাসহ) প্রাথমিক ভাবে নির্বাচিত করা হয়েছ। নিয়োগ কার্যক্রম স্বচ্ছতার সাথে সম্পূর্ণ করায় সাংবাদিকদের পক্ষ থেকেও ধন্যবাদ জানানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.