ফুলবাড়ীতে শালিসকারিদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

প্লাবন শুভ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি :
দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুর ধর্ষণকারিসহ ধর্ষণ ঘটনাটি ধামাচাপাসহ সালিশের অর্থ ভাগবাটোয়ারাকারিদের শাস্তির দাবিতে গতকাল শনিবার ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।
উপজেলা সচতন নাগরিক সমাজের (সনাস) উদ্যোগে স্থানীয় নিমতলা মোড় সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।
মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে উপজেলা সচেতন নাগরিক সমাজের (সনাস) চেয়ারম্যান আরিফ খান জয়ের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আল আমিনের সঞ্চালনায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুর ধর্ষক ও ধর্ষণ ঘটনা ধামাপাচাসহ সালিশের নামে অর্থ ভাগবাটোয়ারাকারিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জাকির হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান ইমাম রেজা, মহাসচিব হামিদুল ইসলাম, ডেনিয়াল হাফিজ, সোহেল খান, ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবের সভাপতি আফজাল হাসেন, ফুলবাড়ী প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক প্লাবন শুভ, সাংবাদিক রজব আলী, মেহেদী হাসান উজ্জ্বল প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, চতুর্থ শ্রেণির বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণ ও সালিশের নামে ধামাচাপা দেওয়া ও সালিশে ধর্ষিতার পিতাকে দেওয়ার নামে অর্ধেক টাকা ভাগবাটোয়ারার ঘটনার সাথে জড়িত কথিত দুই সাংবাদিকসহ সালিশকারিদের দ্রুত আইনের আওতায় আনাসহ ধর্ষকের মৃত্যুদ-ের দাবি জানান।
তারা বলেন, কথিত দুই সাংবাদিক এখন পর্যন্ত ধরা ছোঁয়ার বাহিরেই রয়েছে। তাদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে সাংবাদিকতার নামে অপসাংবাদিকতা দূর করাসহ প্রকৃত সাংবাদিকদের ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন রাখার নজ্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান।
উল্লেখ্য, গত ৩ জুলাই উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রামভদ্রপুর আবাসনের বাসিন্দার চতুর্থ শ্রেণির বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুকন্যাকে একই আবাসনের বাসিন্দা মেহেদুল মন্ডল (৪৭) ধর্ষণ করে। পরে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম বাবলু, গ্রাম পুলিশ আব্বাস আলী, আবাসনের বাসিন্দা সুজন মোল্লাসহ কয়েক ব্যক্তি সালিশের নামে ঘটনাটি ধামাপাচা দিতে ১৪ হাজার টাকায় আপোষরফা করে ধর্ষিতা শিশুর পিতা ৯ হাজার টাকা এবং বাকী টাকা সালিশকারিরা ভাগবাটোয়ারা করে নেন। গত বুধবার (১০ জুলাই) দৈনিক ইত্তেফাক ও গত বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) দৈনিক সংবাদ পত্রিকায় এ সংক্রান্ত পৃথক দুইটি সংবাদ প্রকাশ হলে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন নড়েচড়ে বসে এবং ওইদিনই ধর্ষক মেহেদুল মন্ডলসহ সালিককারিদের অন্যতম সুজন মোল্লাকে আটক করে। একইদিন ধর্ষিতা শিশুর মা বাদী হয়ে ৭জনকে আসামী করে থানায় একটি দায়ের করেছেন।
এদিকে ফুলবাড়ীতে চতুর্থ শ্রেণির এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ছাত্রীকে (১১) ধর্ষণের ঘটনা সালিশ করে ১৪ হাজার টাকায় মিমাংসার বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনের পদক্ষেপ জানতে চেয়ে মহামান্য হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দোষিদের গ্রেফতার নারী নির্যাতন ও চাঁদাবাজী মামলা হয়েছে কি-না তাও জানতে চেয়েছেন। দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি), স্থানীয় থানার ওসি ও ইউএনও -এ বিষয়ে কি পদক্ষেপ নিয়েছেন ২১ জুলাইয়ের মধ্যে তা জানানোর জন্য ডেপুটি অ্যাটর্নী জেনারেলের প্রতি এ আদেশ দেন। এ বিষয়ে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনার পর গত রবিবার (১৪ জুলাই) এ আদেশ দেন বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ। #

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.