পূর্বধলায় স্কুলগুলোতে ছেলেধরা বা গলাকাটা গুজবে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ

সাদ্দাম হোসেন, পূর্বধলা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি:

নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলায় জনমন থেকে ছেলেধরা, মাথাকাটা ও পদ্মাসেতুতে ব্যবহার করা ইত্যাদির ভয় ও বিভ্রান্তিকর মিথ্যা তথ্য দূর করার অংশ হিসাবে রবিবার (২১ জুলাই) পূর্বধলা থানা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ উপজেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নেত্রকোণার পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী এ নির্দেশনা প্রদান করেন।

পূর্বধলা থানা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলার স্কুল কলেজেগুলোতে উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের ছেলেধরা বা গলাকাটা গুজবে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। সভায় আরো জানানো হয় যে, পদ্মা সেতুর সাথে শিশুর মাথা লাগার বিষয়টি বানোয়াট, মিথ্যা ও সম্পূর্ন গুজব। অপরিচিত সন্দেহজনক কাউকে দেখলে আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে পুলিশকে খবর দিন। অনেক পাগল, ভবঘুরে, আধাপাগল ও বোবা লোক আছে। তাদেরকে ছেলে ধরা মনে করে আতংকিত করবেননা।

দিনকে দিন ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত ও আহত হওয়া নিয়ে পূর্বধলা থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ তৌহিদুর রহমান জানান, গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করা রাষ্ট্রবিরোধী কাজের শামিল এবং গণপিটুনি দিয়ে মৃত্যু ঘটানো ফৌজদারি অপরাধ। ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হয়ে এ পর্যন্ত যতগুলো নিহতের ঘটনা ঘটেছে পুলিশ প্রত্যেকটি ঘটনা আমলে নিয়ে তদন্তে নেমেছে। এসব ঘটনা তদন্ত করে এর সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য, পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজের জন্য মানুষের মাথা লাগবে বলে যে গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, মূলত তা থেকে এই ছেলেধরা গুজব রটানো হচ্ছে। তবে এই গুজবের বিরুদ্ধে সতর্ক করে দিয়েছে সেতু কর্তৃপক্ষ। গত ৯ জুলাই তারিখে পদ্মাসেতুর প্রকল্প পরিচালকের কার্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া একটি গুজবের বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন থাকতে বলা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.