হোসেনপুরে ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বেড়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

স্টাফ রিপোর্টার : কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে উত্তাল ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বেড়ে নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। রাস্তা-ঘাট,খাল,পুকুর ও কৃষকের আবাদি ফসল বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। পানিবন্দি অবস্থায় জীবন-যাপন করছেন কয়েক হাজার মানুষ। তাছাড়া, ব্রহ্মপুত্র নদে অব্যাহত ভাঙ্গনে প্রায় দু’শতার্ধিক পরিবার গৃহহারা হয়েছেন।


সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারনে হঠাৎ ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বেড়ে সিদলা ইউনিয়নের সাহেবেরচর-চরবিশ্বনাথপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রামে ভয়াবহ রুপ নিয়েছে। বাড়িঘরে পানি উঠে যাওয়ায় পানিবন্দি অবস্থায় জীবন-যাপন করছেন ওই এলাকার লোকজন। ফলে বন্যায় কবলিত লোকজনের দুর্ভোগ দিনদিন বেড়েই চলেছে। এর মধ্যে অনেকে নিজেদের বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ উঁচু স্থান আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। আবার অনেকে পানির সাথে মোকাবেলা করে নিজের ঘরে উঁচু বাঁশের মাচাং ও কাঠের চৌকি ও কলাগাছের ভেলায় দিয়ে কোন রকমে জীবন-যাপন করছেন। এসব এলাকার কৃষকের আবাদি ধান,সরিষা,শাক-সবজি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। রাস্তা-ঘাট,খাল,পকুর,এমনকি ঘর-বাড়ী পর্যন্ত বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এই সব গ্রামের কৃষকরা ফসলে উপর নির্ভরশীল থাকায় সংসারের ব্যয় মিঠানো নিয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন। সেই সাথে বিশুদ্ধ খাবার পানির সংখট দেখা দিয়েছে। শিশুরা ঠিক ভাবে স্কুলে যেতে পারছেনা। তাছাড়া, ব্রহ্মপুত্রে অব্যাহত ভাঙ্গনে প্রায় দু’শতার্ধিক পরিবার এরই মধ্যে গৃহহারা হয়েছেন। ব্রহ্মপুত্র নদের পানি এই ভাবে ভাড়তে থাকলে পরিশ্রিতি ভয়াবহ আকার ধারন করতে পারে বলে আশঙ্কা করা যাচ্ছে।
এ ব্যাপরে সিদলা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজ উদ্দিন জানান, চর-বিশ্বনাথপুর ও সাহেবের চর গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। রাস্তা-ঘাট,খাল,পুকুর,বাড়ি-ঘর ও কৃষকের আবাদি ফসল পানিতে তলিয়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পানিবন্দি অবস্থায় জীবন-যাপন করছেন কয়েক হাজার মানুষ। ব্রহ্মপুত্রে নদের অব্যাহত ভাঙ্গনে প্রায় দু’শতার্ধিক পরিবার গৃহহারা হয়েছেন। তবে উপজেলা ত্রান ও দূযোর্গ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা দিলীপ দে জানান, ইতঃমধ্যে নদি ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ ও পানিবন্দি পরিবারের মাঝে জনপ্রতি ১০ কেজি চাল,১ কেজি ডাল,১ কেজি চিনি,২ কেজি চিড়া,১ কেজি লবন ও ৫০০ গ্রাম নুডুলস বিতরণ করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কমল কুমার ঘোষ জানান, প্লাবিত এলাকা পরিদর্শন করেছি। হঠাৎ করে ব্রহ্মপুত্র নদের বাড়ি বেড়ে গিয়ে আকষ্কিক বন্যার রুপ নিয়েছে। প্রশাসনের উদ্যোগে নদি ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ ও পানিবন্দি পরিবারের মাঝে ত্রান বিতরণের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.