নিকলীতে শিশুদের হাতে ব্যাটারিচালিত রোহিঙ্গা রিক্সা

শেখ উবাইদুল হক সম্রাট , নিকলী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের নিকলীতে ব্যাটারিচালিত রিক্সা (রোহিঙ্গা রিক্সা) সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। বিলুপ্ত হয়ে গেছে প্যাডেল চালিত রিক্সা। নিয়ন্ত্রণ না থাকায় একসময়ের জনপ্রিয় বাহনটি এখন উপজেলাবাসীর আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁিড়য়েছে।
নিয়ন্ত্রণ ও নজরদারির অভাবে নিকলীতে ব্যাটারিচালিত রিক্সা ও চালাচ্ছে শিশু-কিশোররা। শিশু চালিত এসব রোহিঙ্গা রিক্সার কারণে প্রায় দিনই ঘটছে মাঝাড়ি থেকে বড় ধরনের দুঘর্টনা।রোহিঙ্গা রিক্সা বেপরোয়া গতি সড়কে সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। এই যান সড়কে কেউ কাউকে সাইড দিতে চায় না। এই ওভারটেকিং প্রতিযোগিতায় যানজটের ভোগান্তির পাশাপাশি প্রাণনাশের আশংঙ্কা থাকে। বেশিরভাগ সড়ক দুর্ঘটনার কারণ এই রোহিঙ্গা রিক্সা । এদের দিকে নজর দিচ্ছেনা স্থানীয় প্রশাসন।
সরজমিনে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে ঘুরে দেখা যায়, অপ্রাপ্ত বয়স্ক, শারীরিক ও কম বুদ্ধিসম্পন্ন প্রতিবন্ধি, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের ঝড়ে পড়া শিশু-কিশোর রোহিঙ্গা রিক্সা চালাচ্ছে। অর্থ উপার্জনের জন্য যেকারণে শিক্ষা থেকে ঝড়ে পড়ছে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তারা মানছে না কোনপ্রকার ট্রাফিক আইন বেপরোয়াগতিতে চালাচ্ছে এই যান। আর চালকও আসনে বসছে অভিনব ভঙ্গিতে এক পা উপরে তুলে রাজা-বাদশার মতো ।
কালাম (১৪) নামের এক কিশোর জানায়, পড়ালেখা বাদ দিয়ে সংসার চালানোর তাগিদেই সে ব্যাটারি চালিত রোহিঙ্গা রিক্সা নিয়ে রাস্তায় নেমেছে। দৈনিক তার ৭০০টাকা থেকে হাজার টাকা রোজগার হয়।
পূর্বগ্রামের আব্দুল্লাহ আল-মামুন (২৫) বলেন, বর্তমানে সড়কে বেপরোয়া রোহিঙ্গা রিক্সা পথচারীদের জন্য একপ্রকার হুমকি। বিগত বছরগুলোতে অদক্ষ চালক সরু সড়কে বেপরোয়া গতিতে ইজিবাইক চালানোর ফলে নিকলীতে কয়েকজনের অকাল মৃত্যু হয়েছে, পাশাপাশি অনেক পথচারীকে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়েছে।
মুক্তিযোদ্ধা আদর্শ সরকারি কলেজের ডিগ্রী শিক্ষার্থী আনিসুজ্জামান দিনার জানান, অপ্রাপ্ত বয়সের শিশুদের হাতে রোহিঙ্গার রিক্সা দেওয়া মানে মৃত্যুর কাছে সপেঁ দেওয়া। বেপরোয়া গতিতে এসব বাহন চালানোর ফলে বেশকয়েক জন শিক্ষার্থী আহত হয়ছে। এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন মনে করেন স্থানীয়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.