চুয়েটে দুই দিনব্যাপী ‘জাতীয় বিতর্ক উৎসব-২০১৯’ সম্পন্ন

ডেক্স : চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর বিতার্কিকদের সংগঠন চুয়েট ডিবেটিং
সোসাইটির (চুয়েটডিএস) আয়োজনে দুই দিনব্যাপী ‘জাতীয় বিতর্ক উৎসব-২০১৯’ সম্পন্ন
হয়েছে। ‘গর্জে উঠুক শঙ্খচূড়ের বিষ, ফেনা মুখে আহত তিতাস’ এই স্লোগানে গতকাল ২৭
জুলাই (শনিবার), ২০১৯ খ্রি. বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের পেট্রোলিয়াম ও মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং
বিভাগের সেমিনার কক্ষে এ উৎসবের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন
করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন
অধ্যাপক রনজিৎ কুমার সূত্রধর। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার
(অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী। এ সময় আরো উপস্থিত
ছিলেন নবনিযুক্ত উপ-ছাত্রকল্যাণ পরিচালক ও মেকাট্রনিক্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইঞ্জিনিয়ারিং
বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব হুমায়ুন কবির এবং চুয়েট ডিবেটিং সোসাইটির মডারেটর
ও মানবিক বিভাগের প্রভাষক জনাবা নাহিদা সুলতানা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন
অনুষ্ঠানের আহবায়ক মো. রাজু আহমাদ।
এবারের বিতর্ক উৎসবে দেশের ২৪ টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ৭২ জন বিতার্কিক প্রতিযোগিতায়
অংশ নেয়। উৎসবের প্রথমদিন অনুষ্ঠিত হয় চার রাউন্ডের প্রাথমিক পর্ব। এতে প্রাথমিক
পর্ব শেষে ৮টি বিশ্ববিদ্যালয় সরাসরি কোয়াটার ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়। প্রাথমিক পর্বের সেরা
বিতার্কিক নির্বাচিত হয় চুয়েট ডিবেটিং সোসাইটির সদস্য রকিবুল হোসেন শান্ত। ফাইনালে
সরকারি দল হিসেবে ছিল জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং অর্গানাইজেশন (জুডো) এবং
বিরোধী দল হিসেবে ছিল বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব টেক্সটাইল ডিবেটিং ক্লাব (বুটেক্স
ডিসি)। ফাইনালের বিষয় ছিল- ‘এখনই সময় আহত তিতাসের গর্জে উঠার’। বিষয়ের পক্ষে
বিতর্ক করে বিজয়ী হয় জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি। ফাইনালের শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক হিসেবে
নির্বাচিত হয় জুডো’র তাজরিন তন্বী। উল্লেখ্য, বিতর্ক উৎসবের পৃষ্ঠপোষকতা করেছে
আরামিট সিমেন্ট লিমিটেড এবং মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিলেন দৈনিক প্রথম আলো।
প্রেরিত ছবির ক্যাপশন :
ছবি : চুয়েট জাতীয় বিতর্ক উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানের অতিথিদের সাথে বিজয়ীরা।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.