গফরগাঁওয়ে সানলাইফ ইন্সুরেন্স বীমা গ্রহকরা টাকা ফেরত দাবিতে ধারে ধারে ঘুরছে

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা ঃ ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার সানলাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের বীমা গ্রাহকের মেয়াদপুর্তির ১ কোটি ১০ লাখ চৌদ্দ হাজার ৯ শত টাকা ফেরত পাওয়ার দাবীতে ময়মনসিংহ রিজিওনাল ও গফরগাঁও জোনাল অফিসের ধারে ধারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বীমা গ্রাহকগন তাদের টাকা ফেরত পাওয়ার দাবীতে সানলাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড গনমূখী বীমা প্রকল্পের মূখ্য নির্বাহী পরিচালক বরাবর বহু আবেদন নিবেদন করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছে না।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০০৬ সালে প্রধান কার্যালয়ের অনুমতি সাপেক্ষে গফরগাঁও জোনাল বীমা কার্যক্রম শুরু করেন। বীমা কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর গফরগাঁওয়ের সাধারণ জনগন সানলাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীতে বীমা করেন। কার্যক্রম চালুর পর এলাকার মানুষজন তাদের কষ্টে উপার্জিত টাকা গফরগাঁও অফিসে জমা দিয়ে আসছে। গফরগাঁও এলাকার বীমা গ্রাহকদের বীমার মেয়াদপুর্তি শুরু হয়েছে বিগত ২০১৬ সালে থেকে। মেয়াদপুর্তি পর বীমার গ্রাহকরা গফরগাঁও জোনাল অফিসের মাধ্যমে তাদের পাস বই, ময়মনসিংহ বিকেন্দ্রীকরন অফিসে জমা দিয়েছেন। মেয়াদ শেষ হলেও বীমা গ্রাহকরা তাদের প্রাপ্য টাকা উত্তোলন করতে পারছেন না। গ্রাহকগন বীমার টাকা উত্তোলন করতে না পেরে মাঠ কর্মীদের উপর চাপ সৃষ্টি করে আসছেন। গ্রাহকদের চাপের কারনে গফরগাঁওয়ের মাঠ কর্মীরা এলাকায় থাকতে পারছেন না। বীমা গ্রাহক ও মাঠ কর্মীরা ময়মনসিংহ বিকেন্দ্রিকরন কার্যালয়ে যোগাযোগ করলে অফিস ইনচার্জ এস.এম হাসান আলী গ্রাহকদের উল্টো দমক দিয়ে এলাকার মাঠকমীদের কাছে পাঠিয়ে দেয়। ফান্ড নেই। আমি কি ভাবে চেক দিব কি ভাবে একথা বলে তাড়িয়ে দেয়। বর্তমানে ময়মনসিংহ অফিস থেকে চেক না দিতে পারায় শত শত বীমা গ্রাহকের পাস বই অফিসে পড়ে রয়েছে। এ ভাবে মাসের পর মাস, বছরের পর বছর বীমা কর্মী ও গ্রাহকরা হয়রানীর শিকার হচ্ছে। কিছু কিছু গ্রাহক বারবার হয়রানী হয়ে বীমার টাকা না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে বীমা কর্মীদের বাড়ীতে গিয়ে হামলা করে। পাশাপাশি বীমা কর্মীদের গালাগাল ও খারাপ আচরন করে। বীমার টাকা না পাওয়ার কারনে অনেকের সংসার ভাঙ্গার উপক্রম হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে গফরগাঁও উপজেলার বীমা গ্রাহকদের মেয়াদপুর্তির টাকা দ্রুত ফেরত পাওয়ার জন্য বীমাকর্মী ও গ্রাহকগন কর্তৃপক্ষসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন। বীমা গ্রাহকগন আবদুল জলিল জানান, আমরা নিজের কষ্টের টাকায় বীমা করেছি। মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে এখন টাকা ফেরত পাচ্ছি না। সানলাইফ ইন্সুরেন্সের কর্তৃপক্ষ আমাদের টাকা ফেরত দিচ্ছেনা। আমাদের বীমা চেক দেয়ার ব্যবস্থা না করা হলে আইনের আশ্রয় গ্রহন করতে বাধ্য হবো।
গফরগাঁও জোনাল অফিস প্রধান মো: মাহবুব আলম জানান, বীমা গ্রাহকদের মেয়াদ পূর্তির টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য ইন্সুরেন্সের কর্তৃপক্ষের বহু আবেদন নিবেদন করেও আমরা সারা পাচ্ছিনা। মাঠকর্মী ফরিদা খাতুন জানান, ইন্সুরেন্স কর্তৃপক্ষও আমাদেরকে নানা ভাবে হয়রানি করছে। আমরা এ বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.