মাগুরায় নির্ধারিত মুল্যের চেয়ে অধিক মুল্যে সিগারেট বিক্রির অভিযোগ  

শহিদুজ্জামান চাঁদ,মাগুরাঃ মাগুরাসহ আশেপাশের অঞ্চল গুলিতে সরকার নির্ধারিত মুল্যের চেয়ে গ্রাহকদের কাছে অধিক মুল্যে সিগারেট বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে ৷ প্রতি বছর বাজেট ঘোষণার আগে থেকে অবৈধ উপায়ে বাজারে বেশি মুল্যে সিগারেট বিক্রয়ের ক্ষেত্রে কিছু অসাধু ব্যাবসায়ী অধিক মুনাফা লাভে এক ধরনের প্রতারনার মাধ্যমে  বেশি মুল্যে সিগারেট বিক্রি করছেন বলে  জানাচ্ছেন কোম্পানির প্রতিনিধিসহ স্থানীয় পরিবেশক প্রতিষ্ঠান। ভোক্তা অধিকার রক্ষায়  বিভিন্ন সময় প্রশাসনের পক্ষে অভিযান পরিচালনা হলেও বাজার নিয়ন্ত্রনে তা কার্যকর হচ্ছে না।
বিভিন্ন সুত্র মতে জানা যায়, মাগুরা জেলা শহরসহ বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ে সরকার ও কোম্পানির নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত মূল্যে সিগারেট  বিক্রির মাধ্যমে কিছু অসাধু ব্যাবসায়ী সাধারন ভোক্তাদের কাছ থেকে অবৈধ উপায়ে অধিক মুনাফার অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন।  নির্ধারিত মুল্যের বেশি বিক্রির তালিকায় এক্ষেত্রে রয়েছে স্থানীয় পর্যায়ে বহুল প্রচলিত  ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো টোব্যাকো  কোম্পানির ডারবি, আকিজ গ্রুপের শেইকসহ অন্যান্য সম মুল্যের সিগারেট। বাজেটের আগ মুহূর্ত থেকে মুল্য বৃদ্ধি করে গ্রাহকদেরকে কাছ থেকে এসকল সিগারেট বেশি বিক্রি হতে দেখা যায়।
মাগুরা সদর, শ্রীপুর, মোহাম্মদপুর শালিখা এলাকার বিভিন্ন বাজার ঘুরে ও স্থানীয় খুচরা ব্যাবসায়ীদের সাথে আলাপকালে তারা জানান বাজেটের আগে থেকে প্রয়োজনের তুলনায় সরবারহ কম থাকায় এবং পরে অন্যান্য সিগারেটের মুল্য বৃদ্ধি পাওয়ার কারনে ডারবি ও শেইক সিগারেটের ক্ষেত্রেও আগের চেয়ে কিছু বেশি মুল্যেই বিক্রি করছেন তারা। তবে এই বেশি মুল্যে বিক্রির বৈধতা নেই বলে স্বীকারও করেন তারা।
নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির গ্রাহকদের মাঝে বহুল প্রচলিত ডারবি ও শেইক দুটি সিগারেটের দশ শলাকার এক প্যাকেটের নির্ধারিত বর্তমান মুল্য ৩৫ টাকা, খুচরা সর্বচ্চ বিক্রয় মুল্য ৪ টাকা হারে ৪×১০= ৪০ টাকা হোলেও স্থানীয় পর্যায়ে কিছু অসাধু পাইকারি ও খুচরা ব্যাবসায়ীরা নিজেদের অধিক মুনাফার লক্ষে প্রতি শলাকা ৫ টাকা হারে প্যাকেট ৫×১০=৫০ টাকা মুল্যে অবৈধ ভাবে গ্রাহকদের  জিম্মিকরে ১০ টাকা বেশি মুল্যে কিনতে বাধ্য করছেন। বাজেট ঘষোনার পুর্বে থেকে বেশি মুল্যে বিক্রির উদ্দেশ্যে গোপনে সংরক্ষন করে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির ক্ষেত্রেও এই অসাধু চক্র বিশেষ ভুমিকা রাখে বলে জানা গেছে।
মাগুরার ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর স্থানীয় পরিবেশক মের্সাস আকরাম এন্টার প্রাইজের স্বতাধিকার খান আকরাম হোসেন জানান, কোম্পানির নিম্ন ও মধ্যম আয়ের গ্রাহকদের মাঝে সর্বাধিক প্রচলিত ডারবি সিগারেটের ক্ষেত্রে ভোক্তাদের সুবিধার্থে পুর্বের মুল্যেই বাজারজাত করে আসছে। এক্ষেত্রে কোম্পানি অনেক অর্থ ভর্তুকিও দিচ্ছে। কিন্তু স্থানীয় বাজারে এক শ্রেণীর অসাধু খুচরা ও পাইকারী ব্যাবসায়ীরা অধিক মুনাফা লাভে বিভিন্ন উপায়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে বেশি মুল্য আদায় করে চলেছে। এমনকি বাজেটের আগ মুহুর্তে বাজারজাতের ক্ষেত্রে প্রচলিত নিয়মে সিগারেট সরবারহ করা হলেও এই অসাধু ব্যাবসায়ী চক্র পরবর্তী সময়ে বেশি মুল্যে বিক্রির জন্য গোপনে সংরক্ষনের মাধ্যমে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে থাকে বলেও জানান তিনি।
 সম্প্রতিক সময়ে মাগুরাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভোক্তাঅধিকার এবং  প্রশাসনের পক্ষ থেকে সরকার ও কোম্পানির নির্ধারিত মুল্যের চেয়ে বেশি মুল্যে সিগারেট বিক্রয় বন্ধ করতে অভিযান পরিচালনাসহ খুচরা দোকানিদের এ বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ প্রদান করলেও তা মানছেনা অনেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.