চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা সীমান্তে এক বাংলাদেশীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, সোহেল রানা ডালিম : চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর সীমান্তে আবদুল্লাহ ম-ল (৪৫) নামে এক বাংলাদেশিকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বিএসএফের বিরুদ্ধে। আজ(১৪-আগষ্ট) বুধবার ভোরে সীমান্ত অতিক্রম করে গরু আনতে গেলে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী তাকে পিটিয়ে হত্যা করে বলে অভিযোগ করেন স্থানীয় গ্রামবাসীরা। নিহত আবদুল্লাহ ম-ল দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর গ্রামের মৃত গোলাম রসুল ম-লের ছেলে।
স্থানীয়রা জানান, বুধবার ভোরে আবদুল্লাহসহ ৫/৬ জন বাংলাদেশী ঠাকুরপুর সীমান্তে গরু আনতে যায়। এ সময় সীমান্তের ৮৯/৯০ মেইন পিলারের কাছে অবস্থান করার সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের মালুয়াপাড়া ক্যাম্পের সদস্যরা তাদেরকে ধাওয়া করেন। বিএসএফের ধাওয়ায় বাকীরা পালিয়ে গেলেও ধরা পড়েন অব্দুল্লাহ।
নিহত আব্দুল্লাহ’র ভাই হাবিবুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, বিএসএফের হাতে ধরা পড়ার পর তাকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যার পর তার লাশ সীমান্তের জিরো পয়েন্টে ফেলে রেখে যায়। সকালে খবর পেয়ে গ্রামবাসীদের সাথে নিয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসি।
দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সুকুমার বিশ্বাস জানান, নিহত আবদুল্লার শরীরের বেশ কয়েকটি স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তিনি আরও জানান, লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রণয়ন শেষে মর্গে পাঠানো হবে।
চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক সাজ্জাদ সরোয়ার পিএসসি জানান, ঠাকুরপুর সীমান্তে একজন বাংলাদেশি নাগরিকের লাশ উদ্ধারের খবর আমরা পেয়েছি। তবে কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.