বঙ্গবন্ধুই আজকের বাংলাদেশ -ফারহানা রহমান মুক্ত

প্লাবন শুভ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি :  বঙ্গবন্ধু জন্ম হয়েছিল বলেই বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখতেন একটি সুখি-সমৃদ্ধি সোনার বাংলার। যেখানে কেউ না খেয়ে থাকবে না। কেউ বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে না। কেউ অশিক্ষিত থাকবে না। দেশের মানুষ নিজ নিজ ধর্ম উৎসব মূখর পরিবেশে নিজের মতো করে পালন করবে। এজন্য তিনি জীবনের শ্রেষ্ঠ দিনগুলো অন্ধকারাগারে অতিবাহিত করেছেন। শুধুমাত্র দেশের এবং দেশের মানুষের জন্য। দেশ স্বাধীনের পর যখন জাতির পিতা দেশ গঠনের কাজে নিয়োজিত ছিলেন। ঠিক তখনই খন্দকার মোস্তাক-জেনারেল জিয়াসহ স্বাধীনতা বিরোধীরা ষড়যন্ত্র শুরু করে। কিন্তু ৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার পর দেশের উন্নয়ন, অগ্রগতি ও প্রগতি সবকিছুকে ধ্বংস করে দেওয়া হয়। পদদলিত করা হয় বঙ্গবন্ধু সংবিধানের চার মূলনীতিকে। শুরু হয় পাকিস্তানী ধারায় দেশের মানুষকে ধাবিত করার এক গভীর ষড়যন্ত্র। ষড়যন্ত্রকারীরা ইতিহাসকে চাপিয়ে রেখে জাতির পিতার নাম মুছে ফেলতে নানামূখী ষড়যন্ত্র করলে শেষ পর্যন্ত ইতিহাস নিজ গতিতে চলায় আজ জাতির পিতা নিজ মহিমায় তার আসনে আসীন হয়ে রয়েছে এবং থাকবেন। বঙ্গবন্ধু বাঙালির আদর্শ, বঙ্গবন্ধু বাঙালির সাহস, বঙ্গবন্ধুই আজকের বাংলাদেশ। জাতির পিতার স্বপ্ন বাংলার দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোঁটাতে এবং তার আদর্শের সোনার বাংলা গড়তে কাজ করছেন তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ অপ্রতিরোধ্য গতিতে উন্নতি ও অগ্রগতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এ ধারাকে অব্যাহত রাখতে হবে। এ জন্য বার বার বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে দেশের প্রধানমন্ত্রী করতে বঙ্গবন্ধুর নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে হবে।
গত রবিবার বিকালে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়াড়ী ইউনিয়নের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রাণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী সাংসদীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি’র জ্যেষ্ঠ কন্যা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ফারহানা রহমান মুক্তা।
মহিষানটাস্থ দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রার উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিনুল হক চৌধুরী। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রাণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী সাংসদীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি’র জ্যেষ্ঠ কন্যা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ফারহানা রহমান মুক্তা, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি ইফতেখারুল ইসলাম রিয়েল, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খাজানুর রহমান, শিক্ষক ইসমাইল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সুমিত শীল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠুন চৌধুরী প্রমুখ। এরপরে ফারহানা রহমান মুক্তা পাবর্তীপুরের হামিদপুর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের একটি মসজিদ পরিদর্শন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.