চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় যুবলীগের দু,গ্রুপের নেতাকর্মিদের সংঘর্ষে একজনকে কুপিয়ে হত্যা 

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার শিল্পনগরী দর্শনাতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে যুবলীগকর্মি নাইমুল ইসলাম পল্টু (৩৫) নিহত হয়েছে। তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। আহত হয়েছে আরও একজন। তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৬টার দিকে দর্শনা রেল গেটে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে গোটা এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নিহত নাইমুল ইসলাম পল্টু দামুড়হুদা উপজেলার ঈশ্বরচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রউফের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বেশ কিছুদিন ধরে দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনাতে যুবলীগের দুই গ্রুপের নেতাকর্মিদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে শুক্রবার বিকালে মান্নান-তোতা-ছোট ও হেলাল-মঞ্জুর গ্রুপের সমর্থকরা দর্শনা রেল গেটের কাছে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে মান্নান-তোতা-ছোট গ্রুপের নেতাকর্মিদের হামলায় ঘটনাস্থলেই নিহত হয় নাইমুল ইসলাম পল্টু। গুরুতর আহত হয় মঞ্জুর আহম্মেদ। তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে আহত যুবলীগ কর্মি মঞ্জুর আহম্মেদ দাবি করেছেন, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ধারালো অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান ছোট, দর্শনা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দীন তোতা ও সহ-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে ৬/৭ জন আমাদের উপর হামলা করে। এ সময় যুবলীগ কর্মি পল্টুকে উপর্যপুরী কুপিয়ে হত্যা করা হয়। আমাকেও কুপিয়ে জখম করা হয়।

তবে দর্শনার একাধিক বিশ্বস্ত্র সূত্র নিশ্চিত করেছে, মাদকের ব্যবসা নিয়ে ওই দুই গ্রুপের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরেই বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে গত তিন মাস আগে দু,পক্ষ জড়িয়ে পড়েছিল গোলাগুলিতে। সে সময় কোন হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও শুক্রবারের হামলায় প্রাণ হারাল যুবলীগ কর্মি নাইমুল ইসলাম পল্টু।

দামুড়হুদা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত)জাহাঙ্গীর আলম জানান, নিজেদের মধ্যে অর্ন্তকোন্দলে যুবলীগকর্মি পল্টু খুন হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে তথ্য পেয়েছি। আমরা হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেছি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে দর্শনার বেশ কয়েকটি স্থানে অতি: পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার ও যুগ্ম আহ্বায়ক জিল্লুর রহমান এক বিবৃতিতে বলেছেন, দর্শনায় নিজেদের মধ্যে হামলায় নিহত নাইমুল ইসলাম পল্টু ও হামলাকারীরা কেউই যুবলীগের সাথে সম্পৃক্ত নয়। নিজেদের অপকর্ম ঢাকতে তারা যুবলীগের পদ পদবী ব্যবহার করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.