পতেঙ্গায় ঔষধসহ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম

জগলুল হুদা, বিশেষ প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম :  চট্টগ্রামের উত্তর পতেঙ্গায় নিয়মিত ঔষধ সহ চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। পতেঙ্গা সড়কের পতেঙ্গা মডেল থানার দক্ষিণে উত্তর পতেঙ্গা ষ্টীলমিল বাজার এলাকায় “হক ভা-ারী দাতব্য চিকিৎসালয়” নামের এই কেন্দ্র থেকে গত এক বছর ধরে এই সেবা দেওয়া হচ্ছে। শাহেন শাহ সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারী ট্রাস্টের দারিদ্র্য বিমোচন প্রকল্পের মাধ্যমে চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় এই দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্রটি পরিচালিত হচ্ছে। সপ্তাহের প্রতি শনিবার বিকাল ৩টা থেকে নিয়মিত এই সেবা দিচ্ছেন চট্টগ্রাম মেডিকেলের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আবিদা সুলতানা। মানসম্মত চিকিৎসা নিশ্চিতে গতানুগতিক চিকিৎসা ধারার বাইরে গিয়ে এই কেন্দ্র থেকে প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০-২৫ জন রোগী দেখা হয় এবং চিকিৎসকের দেওয়া ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী রোগীদের উন্নত কোম্পানির ঔষধ বিতরণ করা হয়।

গত শনিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লাইনে দাঁড়িয়ে ধারাবাহিক ভাবে রোগীরা চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। ভিতরে চিকিৎসকের পাশাপাশি দুজন নারী সহকারী রোগীদের সেবা দিতে সাহায্য করছেন। সেবা নেওয়া শেষে বাইরে অন্য একজন পুরুষ সহকারী চিকিৎসকের দেওয়া ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী সাজিয়ে রাখা ঔষধের আলমারি থেকে তাদের ঔষধ দিচ্ছেন। এসময় ঔষধ কিভাবে খেতে হবে তাও বুঝিয়ে দিচ্ছেন তিনি এবং দাগ কেটে চিহ্নিত করে দিচ্ছেন।
চিকিৎসক জানিয়েছেন, এই কেন্দ্রে বিশেষত প্রসূতি মা ও শিশুরা চিকিৎসা নিতে আসেন। ঔষধ সহ বিনামুল্যে চিকিৎসা দেওয়া হলেও এখানে নির্দিষ্ট পরিমান রোগীদের সেবা দেওয়ায় এবং এই সেবা নিয়মিত হওয়ায় মানসম্মত সেবাটি দেওয়া সম্ভব। এদিন দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৪০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, ট্রাস্টের দারিদ্র বিমোচন প্রকল্প পরিচালনা পর্ষদ সাধারণ সম্পাদক আবদুল হালিম আল মাসুদ, অভিভক্ত পতেঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এবং মাইজভান্ডারি গাউছিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ পতেঙ্গা শাখার সভাপতি জাকির আহম্মদ, সিনিয়র সহসভাপতি প্রকৌশলী কামরুল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নেওয়াজ, প্রবাসী সদস্য জালাল উদ্দিন, মো. দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৪০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর স্থানীয় জয়নাল আবেদীন বলেন, এই এলাকায় কোন চিকিৎসা কেন্দ্র নেই। অন্যদিকে এই এলাকাটি বন্দর কেন্দ্রিক এলাকা হওয়ায় প্রচুর নিম্ন আয়ের শ্রমিক এই এলাকায় বসবাস করেন। তাই নিম্ন আয়ের জনসাধারণের জন্য এই দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্রটি খুবই সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত।
আবদুল হালিম আল মাসুদ বলেন, মানুষের অন্যতম মৌলিক ও মানবিক অধিকার স্বাস্থ্য সেবা। এটি নিশ্চিতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় ৬টি দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন করে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। ভবিষ্যতে একটি কেন্দ্রীয় হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমাদের এই সেবা লার্যক্রম আরো বাড়ানো হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.