গফরগাঁওয়ে রাস্তা বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, ৩০টি পরিবার অবরুদ্ধ

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা ঃ ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌর শহরের ৮ নং ওয়ার্ডের নিশাই সরকার মাদ্রাসা এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে পৌরসভার অনুমোদনহীন ও নিয়ম লংঘন করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়েছে। এতে প্রায় ১০/১২ টি বাসার প্রায় ৩০ টি পরিবারের যাতায়াতের সহজ পথ বন্ধ হয়ে গেছে। সীমানা প্রাচীর নির্মাণে বাঁধা দিতে গেলে হামলা, মামলাসহ হয়রানির হুমকি দেওয়া হয়েছে বলেও ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর অভিযোগ।
এলাকাবাসীর সূত্রে জানা গেছে, পৌর শহরের ৮ নং ওর্য়াডের নিশাই সরকার মাদ্রাসা এলাকায় ১ নং গলির মাঝামাঝি স্থানে পৌরসভার নির্দেশ ও আইন অমান্য করে গত দুইদিন ধরে ডাঃ খন্দকার মোহাম্মদ সামসুজ্জোহা নামে এক ব্যক্তি সীমানা প্রাচীর নির্মান করছে। এতে এই গলির পিছনের অংশের ১০/ ১২টি বাসার প্রায় ৩০টি পরিবারের যাতায়াতের সহজ পথ বন্ধ হয়ে গেছে। রাস্তা বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মানের এলাকাবাসী বাধা দিতে গেলে ডাঃ খন্দকার মোহাম্মদ সামসুজ্জোহা ও তার পক্ষের লোকজন এলাকাবাসীকে হামলা, মামলাসহ হয়রানির হুমকি দেয়। খবর পেয়ে গফরগাঁও থানা পুলিশ এসে শাহজাহান খলিফা (৪৪) নামে এলাকার এক ব্যক্তিকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় । পরে এলাকার ২০/২৫ জন মহিলা থানায় উপস্থিত হয়ে মুচলেকা দিয়ে শাহজাহান খলিফাকে মুক্ত করে আনে। এলাকাবাসী পৌর মেয়র এস.এম ইকবাল হোসেন সুমনের শরনাপন্ন হলে পৌর মেয়র অনুমোদনহীন নির্মাণ কাজ বন্ধের জন্য ডাঃ খন্দকার মোহাম্মদ সামসুজ্জোহাকে চিঠি পাঠায়। ডাঃ খন্দকার মোহাম্মদ সামসুজ্জোহা পৌরসভার নির্দেশ অমান্য করে তার সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ অব্যাহত রাখে।
এলাকার বাসিন্দা রেখা আক্তার বলেন, এ গলির রাস্তা দিয়ে আমরা দীর্ঘদিন ধরে চলাচল করে আসছি। গলির মাঝামাঝি রাস্তা বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মান করায় আমাদের চলাচলের পথ প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। আমরা প্রায় অবরদ্ধ হয়ে গেছি।
এ ব্যাপাারে ডাঃ খন্দকার মোহাম্মদ সামসুজ্জোহা জানান, তার নিজের জায়গায় তিনি সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করছেন। তিনি পৌরসভার চিঠি রিসিভ করেননি জানিয়ে বলেন, এ জায়গায় এক বছর আগেও রাস্তা ছিল না।
স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাবুল হাছান বলেন, পৌরসভার নিয়ম অনুযায়ী যে কোন স্থাপনা নির্মাণে পৌরসভার অনুমোদন নিতে হয়। ডাঃ খন্দকার মোহাম্মদ সামসুজ্জোহা এ সীমানা প্রাচীর নির্মাণে পৌরসভার কোন অনুমোদন নেননি।
পৌরসভার প্যানের মেয়র শাহজাহান সাজু বলেন, পৌরসভার আইন অনুযায়ী কমপক্ষে ৩ ফুট জায়গা রেখে সীমানা প্রাচীর নির্মান করতে হয়। এ ক্ষেত্রে তিনি এক ইঞ্চি জায়গাও রাখেননি। গায়ের জোরে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা)আইন ২০০৯ ধারা (১) অমান্য করে তিনি রাস্তা বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.