চুয়াডাঙ্গায় পশু চিকিৎসককে মারধর করে আটকে রাখায় দু’জন গ্রেপ্তার

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গা শহরের পশুহাট পাড়ার আলোচিত মহিলা রুপার গরুর ফার্মের নিয়োমিত পশু চিকিৎসককে মারধরকরে আটকে রাখার ঘটনায় দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
গত (৩১ আগষ্ট) শনিবার সন্ধার পর ওই পশু চিকৎসক চুয়াডাঙ্গা প্রাণি সম্পদ দপ্তরের উপ সহকারী প্রাণি সম্পাপদ কর্মকর্তা মাসুদ রানা রুপার গরুর ফার্মের খোজ খবর নিতে গেলে তাকে মারধর করে আটকে রাখা হয়। পরে খবর পেয়ে আহত ওই পশু চিকিৎসককে উদ্ধার করেন চুয়াডাঙ্গা সদর থানার পুলিশ। এ ঘটনায় ওই পশু চিকিৎসক মাসুদ রানা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- রুপার স্বামী মোস্তাফিজুরু রহমান মুন্না(৩৮) ও মিলন হোসেন(৩২)
এজাহার সুত্রে জানা যায়, পশুহাট পাড়ার আলোচিত মহিলা রুপা তার ফার্মের গরুর চিকিৎসা করানোর জন্য পশু চিকিৎসক মাসুদ রানাকে ডাকেন। গতকাল শুক্রবার বিকেল ৪ টার দিকে ওই পশু চিকিৎসক মাসুদ রানা রুপার ফার্মে পৌছে গরুগুলোর চিকিৎসা শুরু করেন। এর কিছুক্ষণ পর রুপা বলে, তোর চিকিৎসা দেওয়ার কারনে ৩/৪টি গরু ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ক্ষতিপূরন দিয়ে এখান থেকে যাবি। এ কথা বলার পরপরই উপস্থিতসহ আশ পাশের লোকজন ছুটে এসে আমাকে মারধর করে আটকে রাখে। পশু চিকিৎসককে মারধরকরে আটকে রাখার ঘটনা জানাজানি হলে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশও খবর পায়। খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার পুলিশ রাত ৮টার দিকে রুপার গরুর ফার্ম থেকে আহত ওই পশু চিকিৎসককে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠান । একই সাথে ঘটনাস্থল থেকে রুপার স্বামী মোস্তাফিজুরু রহমান মুন্না ও একই এলাকার মৃত মসলেম উদ্দীনের ছেলে মিলন হোসেনকে গ্রেপ্তার করেন। পরে আহত ওই পশু চিকিৎসক বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।
এ ঘটনায় শহরের আলোচিত মহিলা রুপা অভিযোগ করে বলেন, গত ২২ আগস্ট পশু চিকিৎসক মাসুদ রানা ফার্মের গরুগুলোকে খুরা রোগের ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য তাকে পরামর্শ দেন। আমি রাজি হলে তিনি ২৪-২৫ আগষ্ট দুই দিন ধওে ফার্মের মোট ১০০ টা গরুর ভ্যকসিন দেন। ভ্যাকসিন দেওয়ার পর থেকে গরুগুলো অসুস্থ হতে থাকে। এর মাঝেই ৩/৪টি গরুর ভ্যাকসি দেওয়ার স্থানে পচন ধরেছে। পরে ওই পশু চিকিৎসককে বিষয়টি বার বার বলার পরও তিনি গরুত্ব দিচ্ছিলেননা। গতকাল অনেক অনুরোধ করার পর পশু চিকিৎসক ফার্মে গেলে উত্তেজিত ফার্মের একজন কর্মচারী তাকে আঘাত করে বসে।
এদিকে পশু চিকিৎসক মাসুদ রানা বলেন, গরুগুলোকে খুরা রোগের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। ভ্যাকসিন দেওয়ার কয়েকদিন পর ফার্মের মালিক আমাকে ফোন দিয়ে জানায় ফার্মে কয়েকটি গরু অসুস্থ। অসুস্থতার ধরণ শুনে সেই মোতাবেক টিটমেন্ট দেওয়ার কথাও বলা হয়। তার কয়েকদিন পর আমাকে গতকাল ফার্মে যেতে বলা হয়। ফার্মে গিয়ে গরুগুলোকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া শুরু করি এর মাঝে রুপাসহ তার আশে পাশে থাকা বেশ কয়েকজন আমার উপর এলোপাতাড়ী হামলা চালিয়ে আহত করে। পরে আমাকে আটকে রাখা হয় ক্ষতিপূরনের জন্য।
এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান বলেন, পশু চিকিৎসক মাসুদ রানাকে ডাকলে গতকাল শনিবার ৪টার দিকে মাসুদ রানা ওই ফার্মে পৌছে গরুগুলোকে চিকিৎসা শুরুকরে। এর পরই ওই পশু চিকিৎসককে মারধরকরে আটকে রাখা হয়। সরকারি কাজে বাধা দেওয়াসহ একজন পশু চিকিৎসককে মারধরকরে আটকে রাখার খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করাসহ দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ ঘটনায় আহত ওই পশু চিকিৎসক বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। বাকীদের আটক করতে অভিযান অব্যাহত আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.