শৈলকুপা পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ : ভুক্তভোগিদের আন্দোলনে নামিয়ে ফায়দা লুটছে অন্য পক্ষ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌরসভার মেয়র কাজী আশরাফুল আজমের বিরুদ্ধে ইজিবাইক, অটোরিক্সা, ভ্যান ও বাইসাইকেল চালকদের কাছ থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে। এ চাঁদাবাজি বন্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে ইজিবাইক শ্রমিক সমিতি ও ভ্যান চালক শ্রমিক সমিতি। সেখানে উল্লেখ করা হয়, বর্তমান পৌর মেয়র কাজী আশরাফুল আজম ক্ষমতায় আসার পর থেকে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন হতে পৌরসভার অভ্যন্তরে যে সকল ইজিবাইক, অটোরিক্সা, ভ্যান ও বাইসাকেল প্রবেশ করে তাদের কাছ থেকে ৬০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করছে। যে কারনে ইউনিয়নবাসী অতিষ্ঠ হয়ে তারা বারবার মৌখিকভাবে উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন। এছাড়াও উপজেলা পরিষদের সাধারণ সভায় ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ ক্ষুব্ধ হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানকে জানান, দ্রুত এই চাঁদা আদায় বন্ধ না হলে ইউপি চেয়ারম্যানরাও পৌরসভা এলাকা হতে যে সকল পরিবহন ইউনিয়নে প্রবেশ করবে সেকল পরিবহন থেকেও চাঁদা আদায় করার হুমকি দেন তারা।
অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, বর্তমান মেয়র কাজী আশরাফুল আজম দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে নানা অনিয়ম ও দূর্নীতি করে যাচ্ছে।
এর প্রতিবাদে বুধবার সকালে শৈলকুপা উপজেলা পরিষদ চত্বরে শত শত ইজিবাইক ও ভ্যান চালকরা বিক্ষোভ করেন। পরে তাদের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি পেশ করেন। একই সাথে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে স্মারকলিপি পেশ করা হয়।
এদিকে ইজিবাইক ও ভ্যানচালকদের আন্দোলনে নামিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা লুটছে অন্যপক্ষ বলে জানিয়েছে উপজেলার সচেতন মহল। ইজিবাইক ও ভ্যানচালকদের সাথে বিক্ষোভ, সমাবেশে যোগ দেয় শৈলকুপা উপজেলা চেয়ারম্যান শিকদার মোশাররফ হোসেন সোনা’র ছেলে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শিকদার ওয়াহিদুজ্জামান ইকু। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম হোসেন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক শামীমার রশিদ শামীম, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি জুয়েল পারভেজ কর্নেল, সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান নওরজ, সাধারণ সম্পাদক রাজিব বাহাদুর, কৃষকলীগ নেতা মতিয়ার রহমান বিশ্বাস, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি দিনার বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক শাওন শিকদার, ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মিরাজ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক স্বজল হোসেন প্রমুখ।
উপজেলার সচেতন মহল বলছে, পৌর মেয়র চাঁদাবাজি করছে। অপরদিকে আন্দোলনে একাত্বতা ঘোষনার নামে ফায়দা লুটছে আওয়ামী লীগের অপর একটি পক্ষ। এছাড়াও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে দেওয়া স্মারকলিপি ২ টি একই ফরমেটে লেখা হয়েছে। যার অর্থ এটাই স্মারকলিপি একস্থান থেকে লেখা হয়েছে। তাদের প্রশ্ন উপজেলা পরিষদ স্মারকলিপি লিখে ভ্যান চালকদের দিয়েছেন নাকি ভ্যানচালকরা উপজেলা পরিষদকে দিয়েছে।
উল্লেখ্য, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন শৈলকুপা উপজেলায় আওয়ামী লীগ দু’টি দলে বিভক্ত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.