রাঙ্গুনিয়ার মধ্য নোয়াগাঁও স্কুলে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক- ছেলে মেয়েদের স্বপ্ন দেখাতে হবে, তারা যেন ভাল মানুষ হয়

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি : রাঙ্গুনিয়ার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কথা শুনেছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন। শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকালে তিনি চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মধ্য নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ ও বিদ্যালয় হতে ঝরেপড়া রোধকল্পে অভিভাবক সমাবেশ এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে গেলে তিনি অভিভাবকদের সাথে সরাসরি কথা বলেন। এসময় জোয়াহের আক্তার নামে তৃতীয় শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীদের মা বলেন, আমার কোন ছেলে সন্তান নেই, কিন্তু একজন মেয়ে আছে। আমি চাই আমার মেয়ে ভবিষ্যতে আপনার মতো একজন ডিসি হোক।’ জবাবে জেলা প্রশাসক বলেন, বাংলাদেশের ৮ জন ডিসি রয়েছেন, যারা নারী। আপনার সন্তানকে যতœ নিন, সেও ভবিষ্যতে একজন ডিসি নয়, হয়ত এরচেয়েও বড় কিছু হবেন।’ অন্য একজন নারী অভিভাবক বলেন, বাচ্চারা সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত স্কুলে থাকে। তাই তারা যাতে খেলাধুলা করে পড়তে পারে তার ব্যবস্থা করে দিলে ভাল হয়। এছাড়া খানাখন্দ মাঠ, সীমানা প্রাচীর নির্মাণ এবং আসা যাওয়ার ক্ষেত্রে রাস্তায় বকাটাদের উপদ্রব নিরসনে দৃষ্টি দেয়ার অনুরোধ জানায়।’ জবাবে জেলা প্রশাসক বলেন, “অচিরেই বিদ্যালয়ের মাঠ সংস্কার করা হবে, দেড় লক্ষ টাকা ব্যয়ে শিশুদের খেলার স্লিপার এবং বিদ্যালয় সংলগ্ন কমিউনিটি ক্লিনিক সংস্কার সহ প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। পরে বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘একজন আদর্শ মা সস্তানদের আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলতে পারেন। আমি নিজে একটি মফস্বল গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করেছি। যেই পথ দিয়ে হেটে স্কুলে যেতাম সেটা খুব নাজুক ছিল এবং যাওয়ার পথে একটি ঝুকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকোও পেরিয়ে যেতে হতো। অন্যদিকে যেই শ্রেণীতে পড়তাম তাও ঝুকিপূর্ণ ছিল। এছাড়া আমার মাও পড়ালেখা জানতো না। কিন্তু আমাকে খুব দেখাশোনা করতেন। পাশে বসে পাখার বাতাস দিয়ে সব সময় আমার পড়ালেখার খবর নিতেন। মায়ের সেই যতেœ আজ আমি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক। ছেলে মেয়েদের স্বপ্ন দেখাতে হবে, তারা যেন ভাল মানুষ হয়। আপনারাও আপনাদের সন্তানের যতœ নিন, তাদের নৈতিক চরিত্র ঘটনে শিক্ষা দেবেন, তবে আপনার সন্তান একদিন দেশের নামকরা সন্তান হয়ে শুধু আপনার নয়, দেশের মুখও উজ্জ্বল করবে।’
মধ্য নোয়াগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাসুদুর রহমান। সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) পূর্বিতা চাকমা, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জহির উদ্দিন, সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা প্রবীর কুমার চৌধুরী, শিবলু দাশ, লায়লা বিলকিস, জিসা চাকমা, স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর জালাল উদ্দিন, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদ সভাপতি জামাল উদ্দিন, মফজ্জল আহমদ কন্ট্রাক্টর, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) সুলাল কান্তি দে, শিক্ষিকা হাসিনা বেগম, স্থানীয় মো. শামসুদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের ডিসির নিজের ছাত্র জীবনের উদ্ধৃতি দিয়ে লেখা প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থার একাল সেকাল নিয়ে প্রবন্ধ উপস্থিত সকলকে বিমুগ্ধ করে তুলেছে।
এরআগে বিদ্যালয়টির প্রাক প্রাথমিক শ্রেণির শিক্ষার্থীদের খেলনা উপকরণ, স্কুল ব্যাগ, খাতা, কলম ও টিপিন বক্স বিতরণ করেন। শেষে শিক্ষার্থীদের মিড ডে মিল এবং তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের মাঝে নৈতিক শিক্ষা ডায়েরি বিতরণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.